1. abir.sayeed@gmail.com : abir :
  2. xerosmac@gmail.com : Mohin Soy : Mohin Soy
  3. zakariashipon1993@gmail.com : Narayanganj Tribune : Narayanganj Tribune
  4. sifat.sikder13@gmail.com : Sifat Sikder : Sifat Sikder
June 17, 2021, 8:31 pm

নৌকাবিরোধী বিতর্কিত আলাউদ্দিনের চাঞ্চল্যকর ছবি ভাইরাল

Reporter Name
  • Update Time : Thursday, January 21, 2021

+

নিজস্ব প্রতিবেদক : আনারস প্রতীক সামনে রেখে বসে আছেন কুতুবুপুরের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দিন হাওলাদার। পাশেই রয়েছেন আনারস প্রতীকের প্রার্থীসহ স্থানীয় বিএনপি’র নেতাকর্মীরা। এমনই একটি ছবি ভেসে বেড়াচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে। আর এর নেপথ্যের ঘটনা অনুসন্ধান করতে গিয়ে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য।

২০১৬ সালে কুতুবপুর ইউপি নির্বাচনে প্রকাশ্যেই দলীয় প্রতীক নৌকার বিরোধীতা করে আনারসের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন আলাউদ্দিন। শুধু তাই নয়, আনারস প্রতীক সামনে রেখে ও আনারসের প্রার্থীকে পাশে রেখে অসংখ্য উঠোন বৈঠকেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি। আর কুতুবপুরের মুসলিমপাড়া বায়তুল আমান জামে মসজিদের সামনে অনুষ্ঠিত তেমনই একটি পথসভার ছবি এবার এলো প্রকাশ্যে। ছবিটি ২০১৬ সালের ১৮ এপ্রিলের।

অনুসন্ধানে জানা যায়, আঁতাতের নির্বাচনের মাধ্যমেই মেম্বার নির্বাচিত হন বহুল আলোচিত-সমালোচিত আলাউদ্দিন হাওলাদার। আর সেটি করতে গিয়ে প্রকাশ্যে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেন ‘সুযোগ বুঝে জার্সি বদলানোতে’ পটু এই ব্যক্তি। দলের হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে আনারসের পক্ষে চালাতে থাকেন প্রচারনা।

এমন ন্যাক্কারজনক কাণ্ডের জন্য কোনোপ্রকার শোকজ বা ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি আলাউদ্দিনের বিরুদ্ধে। বরং সেই আলাউদ্দিনকেই এবার রাখা হয়েছে থানা আওয়ামী লীগের সদস্য পদে। দলের প্রতি আনুগত্যের প্রমাণ দিতে ব্যর্থ হওয়া একজন ব্যক্তি কী করে থানা আওয়ামী লীগে পদ পান, সেই প্রশ্ন এখন জনমনে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, একসময়কার সাংসদ কবরীর কাছের লোক হিসেবে পরিচিত ছিলেন আলাউদিন। সেই সময়ে কবরীর পক্ষ নিয়ে বর্তমান সাংসদ শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে জ্বালাময়ী বক্তব্য দিতে দেখা যেতো তাঁকে। শামীম ওসমানপন্থী নেতাকর্মীদেরকে কোনঠাসা করে রাখার অভিযোগও ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। তবে শামীম ওসমান সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার সাথে সাথেই খোলস পাল্টে ফেলেন তিনি। অর্থলিপ্সু কতিপয় নেতার বদানত্যায় ও সহযোগিতায় নিজেকে শামীম ওসমানের লোক হিসেবে জাহির করতে থাকেন। ভুমিদস্যুতা, মাদক ব্যবসা, জুয়ার বোর্ড পরিচালনা, নারী কেলেঙ্কারি, চাঁদাবাজিসহ বিস্তর অভিযোগ রয়েছে আলাউদ্দিনের বিরুদ্ধে। কখনো প্রতিবন্ধী কিশোরকে পিটিয়ে, কখনো কবরস্থানের নিচে মার্কেট নির্মাণ করতে গিয়ে, কখনোবা নিজ কার্যালয়ে যুবকদের বর্বর নির্যাতনের মাধ্যমে আলোচনায় এসেছেন তিনি।

এতোকিছুর পরেও আলাউদ্দিনের মতো বিতর্কিত, অন্য দলের এজেন্টকে থানা আওয়ামী লীগে পদায়নের ঘটনায় ক্ষোভ দেখা দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে। তারা বলছেন, ‘এই ধরনের সুবিধাবাদী ও অন্য দলের এজেন্টের পদায়ন কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। আন্দোলন, সংগ্রামের সূতিকাগার নারায়ণগঞ্জ। এই জেলায় এরকম একজন বিতর্কিত লোকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা কেন নেওয়া হচ্ছে না, তা অবশ্যই উদ্বেগের বিষয়। পাশাপাশি তারা আলাউদ্দিনের বিরুদ্ধে কঠোর শোকজসহ বহিস্কারাদেশের দাবি জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 TV Site
Develper By ITSadik.Xyz