1. [email protected] : abir :
  2. [email protected] : Mohin Soy : Mohin Soy
  3. [email protected] : Narayanganj Tribune : Narayanganj Tribune
  4. [email protected] : Sifat Sikder : Sifat Sikder
October 23, 2021, 4:24 pm

বয়স্ক ধনীদের যৌ’নতার ফাঁদে ফেলত ২ বোন

Reporter Name
  • Update Time : Saturday, December 12, 2020

ওরা ভিআইপি প্র’তারক। ধনাঢ্য ব্যবসায়ী, শিল্পপতিদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে প্র’তারণা শুরু করে। প্রথমেই গ্রামীণফোনের তেজগাঁও নাবিস্কো মোড়ে কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের ম্যানেজার অনিক মাহমুদ রুবেল মোবাইল ফোনের গ্রাহকের গো’পন ত’থ্য বিশেষ করে ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র ও স্থায়ী-অ’স্থায়ী ঠিকানা সংগ্রহ করে।

এরপর কখনো সমাজকর্মী, কখনো সুবিধা বঞ্চিত শি’শুদের জন্য তহবিল সংগ্রহে নিয়োজিত কর্মী, কখনো চাকরিপ্রার্থী কিংবা প্রেমের অভিনয় দিয়ে শুরু করে ফোনালাপ। কখনো প্রয়োজন দেখিয়ে সাক্ষাৎ। সামান্য হৃদ্যতা হয়ে গেলে তো কথাই নেই।

ব্যক্তিগত স্প’র্শকাতর বা গো’পন কথার রেকর্ড জমায় মুঠোফোনে। এরপর শুরু হয় ব্ল্যা’কমেইল। কেউ ২ লাখ, কেউবা ২০ লাখ টাকা দিয়ে নিস্তার পান। এভাবে গ্রামীণফোনের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার থেকে গ্রাহকের ত’থ্য চু’রি করে প’রিকল্পিতভাবে মানুষকে ফাঁ’দে ফেলে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার একটি চক্রকে গ্রে’ফতার করেছে হাতিরঝিল থা’না পু’লিশ।

গ্রে’ফতারকৃতরা হলেন- গ্রামীণফোন কোম্পানির কাস্টমার সার্ভিস ম্যানেজার রুবেল মাহমুদ অনিক (২৭), পারভীন আক্তার নুপুর (২৮), তার বড় বোন শেফালী বেগম (৪০) ও মতিঝিলের পারফেক্ট ট্রাভেল এজেন্সির কর্মচারী শামসুদ্দোহা খান ওরফে বাবু (৪০)।

গ্রে’ফতারকৃত গ্রামীণফোনের কাস্টমার কেয়ারের ম্যানেজার অনিক মাহমুদ রুবেল ২০-২৫ জনকে ব্ল্যা’কমেইল করার কথা স্বীকার করেছেন। এই চক্রের শিকারের মধ্যে আছেন চিকিৎসক, প্রকৌশলী, রাজনীতিবিদ, অবসরপ্রাপ্ত সামরিক ও বেসামরিক কর্মক’র্তা, ধনাঢ্য ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি।

পাশাপাশি সিএনজি চালক, দর্জি, ফলমূল বিক্রেতার মতো পেশার লোকজনও আছে। পু’লিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার হারুন অর রশীদ বলেন, দৃশ্যমান কোনও পেশা না থাকলেও সপ্তম শ্রেণি পাস নূপুর থাকেন গুলশানের নিকেতনে। তার ফ্ল্যাট ভাড়া মাসে লাখ টাকা।

তার মেয়ের স্কুলের বেতন প্রতিমাসে প্রায় ১০ হাজার টাকা। তিনি বনানীর ১১নং রোডের ই-ব্লকের গ্রিন ডিলাক্স হাউজ নামের একটি জিমে নিয়মিত যান। সেখানে প্রতিমাসে ৩০ হাজার টাকা বিল দেন। গুলশান থা’নায় তিনি একবার অ’ভিযোগ করেছিলেন যে তার ৬টি লিপস্টিক চুরি হয়েছে, যেগুলোর দাম ৯০ হাজার টাকা।

তিনি বলেন, চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন ব্যক্তিকে টা’র্গেট করে প্রেমের ফাঁ’দে ফেলে ব্ল্যা’কমেইল করেন। তাদের টা’র্গেট ছিল মূলত ষাটোর্ধ ব্যক্তিরা। টা’র্গেট করা ব্যক্তির সব ব্যক্তিগত ত’থ্য সংগ্রহ করে পরিবারের সব সদস্যকে জানিয়ে দেওয়ার হু’মকি দিয়ে পাঁচ লাখ থেকে শুরু করে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত আদায় করেন তারা।

পু’লিশ জানায়, ভু’য়া আ’ইনজীবীর মাধ্যমে ফোন করে না’রী নি’র্যাতন এবং ধ*ণ মা’মলার হু’মকি দিয়ে ভ’য় দেখানো হয়। এই চক্রকে টা’র্গেট করা ব্যক্তির ব্যক্তিগত ত’থ্য সরবরাহ করে গ্রামীণফোনের কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারের ম্যানেজার রুবেল মাহমুদ অনিক।

গত বৃহস্পতিবার থেকে রবিবারের মধ্যে রাজধানীর মোহাম্ম’দপুর, হাতিরঝিল ও বাড্ডা এলাকা থেকে তাদের গ্রে’ফতার করে হাতিরঝিল থা’না পু’লিশ। হাতিরঝিল থা’নায় দা’য়ের করা প্র’তারণা এবং ডিজিটাল নি’রাপত্তা আ’ইনের দুই মা’মলায় তাদের গ্রে’ফতার দেখায় পু’লিশ। আ’ইনজীবী পরিচয়দানকারী ইসা নামে চক্রের এক সদস্য এখনও পলাতক।

যেভাবে ব্ল্যা’কমেইল করা হয়: টা’র্গেট করা ব্যক্তির মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে নূপুরকে গ্রামীণফোন সার্ভিস সেন্টারে কর্মরত অনিক তাদের ব্যক্তিগত ত’থ্য সরবরাহ করে। বিস্তারিত এসব তথ্য নিয়ে নূপুর ওইসব ব্যক্তিকে হু’মকি দিতে থাকে। নূপুরের চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দিলে এমন হু’মকি অব্যাহত থাকে। এমনকি তার সঙ্গে বিয়ে হয়েছে এমন কথা পরিবারের সদস্যদের জানানোর হু’মকি দেওয়া হয়।

দা’বীকৃত টাকা দিতে অ’স্বীকৃতি জানালে নূপুরের বড়বোন শেফালী টা’র্গেট করা ব্যক্তিকে ফোন করে মা’মলার হু’মকি দেয়। অনেকেই স’ম্মানের ভ’য়ে দা’বীকৃত টাকা দিয়ে দেন। তবে কেউ টাকা দিতে অ’স্বীকৃতি জানালে আ’ইনজীবী পরিচয় দিয়ে ইসা নামে অপর এক সদস্য ওই ব্যক্তিকে ফোন করে মি’থ্যা ও বা’নোয়াট মা’মলা বা না’রী নি’র্যাতন মা’মলা করার হু’মকি দেয়।

ইসা বিভিন্ন মি’থ্যা ও বা’নোয়াট বিল ভাউচার তৈরি করার কথাও জানায়। এমনকি শারীরিক অ’সুস্থতার অজুহাতে পূর্ব প’রিকল্পনা অনুযায়ী টা’র্গেট করা ব্যক্তিকে ফাঁ’সানোর জন্য নামকরা চিকিৎসকদের কাছে গিয়ে প্রেসক্রিপশনে স্বামীর নাম অ’পশনে ওই ব্যক্তির (টা’র্গেট) নাম লিখে আনে নূপুর।

নূপুরের বোন শেফালী ক্লাস থ্রি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। তিনি চাঁদনী চক মার্কেটে স্কার্ফ, হিজাব ও বোরকার ব্যবসা করেন। শামসুদ্দোহা মতিঝিল দৈনিক বাংলা মোড়ে পারফেক্ট ট্রাভেল এজেন্সিতে ১৫ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করেন। অবিবাহিত শামসুদ্দোহা মোহাম্মদপুরে শেফালীর ফ্ল্যাটেই থাকতেন।

অনিক তেজগাঁও শিল্পা ল থা’নাধীন নাবিস্কো মোড়ে অবস্থিত গ্রামীণফোন কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারে ম্যানেজার হিসাবে কর্মরত। ইসা নিজেকে আ’ইনজীবী ও একটি ল’ ফার্মে কাজ করে বলে পরিচয় দিয়েছেন। তথ্য সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক।।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 TV Site
Develper By ITSadik.Xyz