1. abir.sayeed@gmail.com : abir :
  2. xerosmac@gmail.com : Mohin Soy : Mohin Soy
  3. zakariashipon1993@gmail.com : Narayanganj Tribune : Narayanganj Tribune
  4. sifat.sikder13@gmail.com : Sifat Sikder : Sifat Sikder
July 27, 2021, 1:55 am

মাদকেই ধ্বংস রসুলপুর, মিলছে রাজনৈতিক শেল্টার

Reporter Name
  • Update Time : Wednesday, June 16, 2021

বিশেষ প্রতিবেদনঃ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন যেন মাদকের এক বিরাট বাজারে পরিণত হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে একের পর পর হুশিয়ারি, ঘোষণার পরেও কোনোভাবেই এই মরণব্যাধি মাদক নির্মূল করা যাচ্ছে না। বিশেষত ইউনিয়নের বৃহত্তর রসুলপুর পরিণত হয়েছে মাদকের স্বর্গরাজ্যে। এলাকার যুবসমাজ সহজেই মাদকদ্রব্য পাওয়ার কারণে নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। নেশার টাকা জোগাড় করতে গিয়ে তারা নানা অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

একাধিক সূত্র ও স্থানীয় জনসাধারণ জানায়, মাদকের সহজলভ্যতায় এখানকার যুবসমাজ নেশায় ডুবে মরছে। ফলে দিন দিন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক শ্রেণির তথাকথিত নেতার সরাসরি আশকারায় ক্রমাগত মাদক কারবারিরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। ঢাকার শ্যামপুর ও কদমতলী থানা এলাকার সাথে রসুলপুরের সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থার ফায়দাও তুলছে মাদক ব্যবসায়ীরা।

সূত্রমতে, রসুলপুরে মাদক ব্যবসায়ীর সংখ্যা শিউরে ওঠার মতো। বলা চলে, ওই অঞ্চলের ঘরে ঘরে একপ্রকার নির্বিঘ্নে পৌঁছে যাচ্ছে মাদক। সন্ধ্যার পরে তো বটেই, দিনপদুপুরেও একপ্রকার ফেরি করে এই মরণ নেশা বিক্রি করা হচ্ছে। রসুলপুরের প্রায় প্রতিটি অলিগলিতে আস্তানা গেড়ে বসেছে মাদকের একাধিক চক্র। রসুলপুরে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িতদের মধ্যে মোঃ জয়নাল হাজারী, পিতাঃ মরহুম আলি (মুদি দোকানদার আমিরের বাড়িতে বসে বিক্রি করে), চুল্লা বাবু, পিতাঃ বেঈল, ভাঙ্গারপুলের গেরগের বাবু (স্বাধীন মনিরের ভাই), একই এলাকার আলমগীর, পিতাঃ রাজা মিয়া, বাঁশবাগান এলাকার মাসুমের শালা হিমু, চুল্লা বাবুর বন্ধু জুয়েল। তাজু সাহেবের বাড়ির ভাড়াটিয়া মুন্না ও তার স্ত্রী (বাসায় বসে মাদক ব্যবসা করে)। বাঁশবাগান এলাকার হাকিম পাটোয়ারীর ছেলে আনন্দ, ওয়াসার পাড়ের মুদি দোকানদার তাজুর ছেলে সুজন, পান্না মিয়ার ছেলে আমিন, বলা আলমগীর, বাগানবাড়ি এলাকার সেলিমের ভাই খোকন, শাহিদার স্বামী তাজু শেখ (মধ্য রসুলপুর মসজিদের সামনে ক্যারাম বোর্ডের দোকান), মধ্য রসুলপুরের মোঃ মান্নানের ছেলে সাজ্জাদ, একই এলাকার কাদেরের ছেলে ফয়সালের নাম উল্লেখযোগ্য।

একাধিক সূত্র জানায়, রসুলপুরের আনাচে-কানাচে প্রকাশ্যে পাওয়া যাচ্ছে ইয়াবা, দেশি-বিদেশি মদ, হেরোইন ও গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য। এমনকি রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকাও হয়ে উঠেছে মাদক বিকিকিনির কেন্দ্রবিন্দু। এসব জায়গায় মাদক ব্যবসা এখন ওপেন সিক্রেট। অনুসন্ধানে জানা গেছে, এসব পয়েন্টে প্রশাসনিক অভিযান চালানোর আগেই রহস্যজনকভাবে খবর চলে যায় মাদক সিন্ডিকেটের কাছে। ফলে মাদক চালানকারীরা সময়মতো আউটার সিগন্যালে নেমে সটকে পড়ে। একইভাবে বিকিকিনির পয়েন্টগুলোতেও ত্বরিত সব খবর পৌঁছে যায়। যে কারণে প্রশাসনিক অভিযানগুলো বারবারই ব্যর্থ হচ্ছে।

জানা গেছে, মাদক কারবারিরা রাতের আঁধারে বড় বড় চালান নামায়। পরে তারা বিভিন্ন পাড়া, মহল্লায় তা ছড়িয়ে দেয়। এমন উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে উৎকণ্ঠার মধ্যে আছেন অভিভাবকেরা। তারা মাদকের বিরুদ্ধে কার্যকরী অভিযানের দাবি জানিয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 TV Site
Develper By ITSadik.Xyz